আর্কাইভ  বৃহস্পতিবার ● ৩০ জুন ২০২২ ● ১৬ আষাঢ় ১৪২৯
আর্কাইভ   বৃহস্পতিবার ● ৩০ জুন ২০২২
PMBA
PMBA

নীলফামারীর বাড়িতে বিয়ে সারলেন অভিনেত্রী সানাই মাহবুব

শনিবার, ২৮ মে ২০২২, রাত ০১:১০

স্টাফ রিপোর্টার, নীলফামারী: সব জলকল্পনা শেষে অবশেষে বিয়ের পিড়িতে বসলেন আলোচিত সমালোচিত অভিনেত্রী সানাই মাহবুব। তিনি গত বছর অভিনয় ছেড়ে দেওয়ার ঘোষণা দেন। তারপর থেকেই আর আলোচনায় নেই তিনি। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সচল থাকলেও আগের মতো খোলামেলাভাবে আর দেখা যায়নি তাকে।  

শুক্রবার(২৭ মে) নীলফামারী শহরের বাবুপাড়া মহল্লার বাড়িতে বিয়ের পিঁড়িতে বসেন এই অভিনেত্রী। সানাইয়ের বর নীলফামারী জেলার কিশোরীগঞ্জ উপজেলার বাহাগিলি ইউনিয়ন দণি দুরাকুঠি এলাকার আনছার আলীর ছেলে আবু সালেহ মুসা। তিনি ঢাকায় একটি বেসরকারি ব্যাংকের কর্মকর্তা।

২০১৯ সালে সানাই সাবেক এক মন্ত্রীকে বিয়ে করছেন এমন খবর প্রকাশ পেয়েছিল। সেসময় একটি সংবাদমাধ্যমকে আলোচিত এই অভিনেত্রী নিজেই সে খবরের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেছিলেন, 'পারিবারিকভাবেই বিয়ে করতে যাচ্ছি। ২৩ ফেব্রুয়ারি সকালে বাগদান হয়। তারপর সে বিয়ে নিয়ে তেমন কিছু আর শোনা যায়নি। বা প্রচার প্রচারনায় আসেনি। এরপর গত বছরের রোজা মাসে ফেসবুকে লাইভে এসে সানাই জানিয়েছেন, অভিনয় ছেড়ে ধর্মের পথে যাচ্ছেন তিনি।

তিনবছর পর আবার বিয়ের পিঁড়িতে বসলেন এই অভিনেত্রী। তবে এ প্রসঙ্গে সানাইর সঙ্গে যোগাযোগ করলে কোনো মন্তব্য করতে রাজি হননি তিনি সাংবাদিকদের নিকট। এমনকি তার বাড়ির ভিতরে সাংবাদিকদের প্রবেশ করতেও বাধা দেয়া হয়েছে। অনলাইন মিডিয়া ঢাকা পোষ্টের নীলফামারী প্রতিনিধি সরিফুল ইসলামকে সানাইয়ের বাড়িতে আটক করে রাখা হয়েছিল। পরে স্থানীয়রা সেটি মিটিয়ে তাকে ছাড়িয়ে নেয়। মহল্লার পরিচিতজন ও নিজস্ব আত্মীয়স্বজন আমন্ত্রিত হয়ে দুপুরে বিয়ের খাওয়া দাওয়া করেন। বেলা তিনটার দিকে গাড়ির বহর নিয়ে আসে বরযাত্রী। সন্ধ্যার আগেই বিয়ের পর্ব শেষে সানাই বরের সাথে শ্বশুড়র বাড়ি চলে যান বলে মহল্লাবাসী নিশ্চিত করে।

অভিনেত্রী হিসেবে ক্যারিয়ারে সুবিধা করতে পারেননি সানাই। ৬টি সিমেনায় অভিনেত্রী হিসেবে চুক্তিবদ্ধ হলেও কারো সাথে কাজ করতে পারেনি তিনি। আলোচিত হওয়ার বদলে বিভিন্ন কর্মকান্ডের কারণে সমালোচিতই হয়েছেন বেশি। গত বছর অভিনয় ছেড়ে আল্লাহর পথে বাকি জীবন কাটানোর ঘোষণা দিয়েছিলেন তিনি। তারপর থেকেই হিজাব পরে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে উপস্থিত হতে দেখা যেত তাকে। 

 

 

মন্তব্য করুন


Link copied