আর্কাইভ  শনিবার ● ১৩ এপ্রিল ২০২৪ ● ৩০ চৈত্র ১৪৩০
আর্কাইভ   শনিবার ● ১৩ এপ্রিল ২০২৪
 width=
 
 width=
 
শিরোনাম: পঞ্চগড়ে দুই মোটরসাইকেল সংঘর্ষ, নিহতের সংখ্যা বেড়ে চার       পঞ্চগড়ে দুই মোটরসাইকেলের মুখোঁমুখি সংঘর্ষে নিহত ২, আহত ৪       পঞ্চগড়ে প্রেমিকের হাতে প্রেমিকা খুন!       নাথান বমের স্ত্রীকে বান্দরবান থেকে লালমনিরহাটে বদলি       দিনাজপুরে ৬ লাখ মুসল্লি’র সমাগমে দক্ষিণ এশিয়ার অন্যতম সর্ববৃহৎ ঈদ জামাত      

 width=
 

আদিতমারী সীমান্তে বিএসএফ'র গুলিতে আহত বাংলাদেশি যুবকের মৃত্যু

বুধবার, ২৭ মার্চ ২০২৪, রাত ০৮:২৭

লালমনিরহাট প্রতিনিধি।। লালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলার দূর্গাপুর সীমান্তে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফের গুলিতে আহত গরু পাড়াপাড়কারী রাখাল লিটন মিয়া (২০) চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছে। 

বুধবার  (২৭ মার্চ) সন্ধ্যা ৬টায় পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে বিএসএফ নিহতের লাশ বিজিবির নিকট হস্তান্তর করবেন বলে ১৫ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল মো. মোফাজ্জল হোসেন আকন্দ বিষয়টি নিশ্চিত করেন। তার আগে পৌনে ৪টার দিকে বিজিবি-বিএসএফ'র স্টান্ডার্ট বৈঠকের পর এই সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

এর আগে মঙ্গলবার রাত ১১টায় ভারতের কুচবিহার জেলা সদরের এমজেএম নামে একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়  বলে নিশ্চিত করেছেন বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)।

এনিয়ে বুধবার  (২৭ মার্চ) সকাল সাড়ে ১১টায় উপজেলার দূর্গাপুর সীমান্তের ৯২৩ নম্বর মেইন পিলারের কাছে বিজিবি-বিএসএফের মধ্যে পতাকা বৈঠক অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা থাকলেও সময় পিছিয়ে তা বিকেলে করা হয়।

মঙ্গলবার (২৬ মার্চ) ভোরের দিকে উপজেলার দূর্গাপুর সীমান্তের ৯২৩ নম্বর মেইন পিলারের কাছে বিএসএফ -এর গুলিতে লিটন মিয়া আহত হয়। পরে চিকিৎসাধিন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। লিটন মিয়া উপজেলার দূর্গাপুর ইউনিয়নের দীঘলটারী এলাকার মো. মোকছেদুল ইসলামের ছেলে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, উপজেলার দুর্গাপুর সীমান্তের ৯২৩ নম্বর মেইন পিলার এলাকায় দিয়ে রাতে বাংলাদেশি কয়েকজন যুবক গরু আনার চেষ্টা করলে ভারতীয় জলপাইগুড়ি-৭৫ বিএসএফ ব্যাটালিয়নের বারথার ক্যাম্পের টহল সদস্যরা গুলি করে। এসময় লিটন মিয়া গুলিবিদ্ধ হয়ে ঘটনাস্থলে পড়ে যায়। পরে বিএসএফ সদস্যরা তাকে নিয়ে ওই এমজেএম হাসপাতালে ভর্তি করান।

এ বিষয়ে লালমনিরহাট ১৫ বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল মো. মোফাজ্জল হোসেন আকন্দ বলেন, বিএসএফ - এর গুলিতে আহত বাংলাদেশীর চিকিৎসাধীন অবস্থায় মঙ্গলবার রাতে  মৃত্যু হয়েছে। দুই দেশের মধ্যে পতাকা বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে। ওই  বাংলাদেশীর মরদেহ ফেরত আনার প্রক্রিয়া চলছে।

মন্তব্য করুন


 

Link copied