আর্কাইভ  সোমবার ● ২৯ নভেম্বর ২০২১ ● ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৮
আর্কাইভ   সোমবার ● ২৯ নভেম্বর ২০২১

ধর্মঘটে বাসহীন উত্তরবঙ্গ, চরম দুর্ভোগে যাত্রীরা

রবিবার, ৭ নভেম্বর ২০২১, দুপুর ১২:৫৩

ডেস্ক: হঠাৎ করেই জ্বালানি তেল ডিজেল-কোরোসিনের দাম বৃদ্ধি করা হয়েছে। সে অনুসারে সরকারিভাবে ভাড়া নির্ধারণ না করায় পরিবহন মালিক সমিতির ডাকে অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট চলছে। ৩ দিন ধরে উত্তরাঞ্চলের মহাসড়ক অনেকটাই অচল। এতে চরম দুর্ভোগে পড়েছেন সাধারণ যাত্রীরা।

যে সড়ক সারাদেশের যাত্রী পরিবহনে বাস-কোচ, মিনিবাস চলাচলে ব্যস্ত থাকতো, এখন শুধুই নিরবতা। এর মাসুল দিতে হচ্ছে যাত্রীদের। বাস না মেলায় অন্যান্য গাড়ীতে দ্বিগুণ, তিনগুণ বেশি ভাড়া দিয়ে যেতে হচ্ছে কর্মস্থল তথা কাঙ্খিত গন্তব্যে। সেখানেও মানুষের বেশ জটলা। 

রোববার সকালে উত্তরবঙ্গের প্রবেশদ্বার সিরাজগঞ্জের বঙ্গবঙ্গ সেতু পশ্চিম সংযোগ মহাসড়কের কড্ডার মোড় এলাকায় ভীড় করেছেন দেই শতাধিক মানুষ। নেই বাস, পাশের দাঁড়িয়ে আছে ঢাকাগামী একটি ট্রাক ও পিকআপ। 

তাতে যাত্রীরা যেতে চাইলে ভাড়া চাওয়া হচ্ছে জনপ্রতি হাজার টাকা, এমন কথা জানালেন সিরাজগঞ্জের কামারখন্দ উপজেলার জামতৈল গ্রামের গার্মেন্ট কর্মী ইসরাফিল হোসেন। তিনি জানান, মা অসুস্থ্য কয়েক দিনের ছুটিতে বাড়িতে এসেছিলাম স্ত্রী-সন্তান নিয়ে। এমন মহাবিপদে পড়বো তা কল্পনা করিনি। ঢাকা যেতে হাজার আর চান্দুরা যেতে ট্রাক জনপ্রতি ভাড়া যাচ্ছে ৫শ’ টাকা। এতো টাকা দিয়ে আমাদের যাওয়া কি সম্ভব?

সেখানে থাকা বেলকুচির কামারপাড়া কাপড় ব্যবসায়ী আবুল হোসেন, ইয়াসিন আলী জানান, কিছু কাপড় নিয়ে নারায়ণগঞ্জ ও ঢাকায় যাচ্ছি। তবে কিভাবে যাবো বুঝে উঠতে পারছিনা। আমরা চাই সরকার ও পরিবহন মালিকরা বসে দ্রুত সিদ্ধান্ত নিক। কারণ, এভাবে চলতে থাকলে আমাদের ব্যবসা-বাণিজ্য অচল হয়ে পড়বে। করোনাকালে প্রায় দেড়বছর কোন ব্যবসা হয়নি। এখন যদি এরকম চলে তাহলে আমাদের পথে বসতে হবে।

এদিকে, বেলা বাড়ার সাথে সাথে এই মহাসড়কে বাড়তে থাকে নারী-পুরুষের ভীড়। এ ভীড় ছিল হাটিকুমরুল রোডেও। সয়দাবাদেও অপেক্ষামান ছিল যাত্রীরা। একই চিত্র সারা রাস্তার মোড়ে-মোড়ে। একটি খালি ট্রাক, পিকাপ, মাইক্রোবাস দেখা মাত্রই হাত নেড়ে থামানোর আকুতি দুর্ভোগে পড়া যাত্রীদের। 

তবে কড্ডার মোড়ে সেতু পাড় ও চান্দুরা যাতায়াতে ছিল অগণিত ভাড়ায় চালিত মোটরসাইকেল। সেতু পাড় হতে জনপ্রতি এই মোটরসাইকেল ভাড়া নিচ্ছে শত টাকা করে। এছাড়া চান্দুরা যেতে ৫ থেকে ৭শ’ টাকা করে নেওয়া হচ্ছে।

এ ধর্মঘটের কারণে জেলার অভ্যন্তরীণ সড়কে চলাচল করছেনা কোন ধরনের বাস। এজন্য কদর বেড়েছে সিএনজি চালিত অটোরিক্সার।

সিরাজগঞ্জের বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিম থানার ওসি মোসাদ্দেক আলী জানান, মহাসড়কে দূরপাল্লার বাস চলাচল বন্ধ রয়েছে। এজন্য দূরগামী যাত্রীরা চরম দুর্ভোগে পড়েছেন।    

বিষয়টি নিয়ে সিরাজগঞ্জ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতির ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রাজ্জাক রাজা বলেন, হঠাৎ করে ডিজেলের দাম অস্বাভাবিক হারে বৃদ্ধি হলেও সরকার এর সাথে সমন্বয় করে বাসের ভাড়া বৃদ্ধির বিষয়টি সুরাহা করেনি। এজন্য পরিবহন মালিক ও শ্রমিক ঐক্য পরিষদের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী শুক্রবার সকাল হতে অনির্দিষ্টকালের কর্মবিরতি চলছে।

মন্তব্য করুন


Link copied