আর্কাইভ  বৃহস্পতিবার ● ৮ জুন ২০২৩ ● ২৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩০
আর্কাইভ   বৃহস্পতিবার ● ৮ জুন ২০২৩
 width=
 width=
শিরোনাম: আদানির কেন্দ্র থেকে আবারও বিদ্যুৎ সরবরাহ শুরু       নীলফামারীতে মসজিদ ভিত্তিক শিক্ষা কার্যক্রম রাজস্ব খাতে নিতে স্বারকলিপি প্রদান       নীলফামারীতে জাতীয় পুষ্টি সপ্তাহের উদ্বোধন       নীলফামারীতে শিশু শ্রম নিরসন বিষয়ক সেমিনার অনুষ্ঠিত       নীলফামারী র‌্যাব-১৩ অভিযানে ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার      

নীলফামারীতে ভাইয়ের হাতে ভাই খুন॥ র‌্যাবের অভিযানে পলাতক আসামী গ্রেপ্তার

শনিবার, ২৯ এপ্রিল ২০২৩, বিকাল ০৬:৪৮

বিশেষ প্রতিনিধি॥  জমি নিয়ে বিরোধের জেরে ভাইয়ের হাতে ভাই খুনের ঘটনায় পলাতক এক আসামীতে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব ১৩ নীলফামারী সিপিসি-২। র‌্যাব -১৩ নীলফামারী ক্যাম্পের সদস্যরা অভিযান চালিয়ে শুক্রবার (২৮ এপ্রিল) রাতে পঞ্চগড় জেলার দেবীগঞ্জ উপজেলার টেপ্রীগঞ্জ ইউনিয়নের মিলনবাজার এলাকা থেকে বিটুল ইসলামকে গ্রেপ্তার করে। 
মো. বিটুল ইসলামের গ্রেপ্তারের বিষয়টি শনিবার(২৯ এপ্রিল) দুপুরে র‌্যাব-১৩ নীলফামারী ক্যাম্পের সহকারী পরিচালক ফাইট  লেফটেন্যাণ্ট মাহমুদ বশির আহমেদ নিশ্চিত করেন। 
র‌্যাব জানায়, গত ২৩ এপ্রিল সন্ধ্যায় খুন হন নীলফামারীর ডোমার উপজেলার ভোগডাবুড়ী ইউনিয়নের শিমুলতলী নেংরীর মোড় গ্রামের রফিকুল ইসলাম (৫৫)। এ ঘটনায় নিহতের ছেলে ফরিদুল ইসলাম বাদি হয়ে তার চাচাতো ভাই মনির ইসলামকে (২২) প্রধান আসামী করে তার চাচা  মো. বিটুল ইসলামসহ (৪৭) ১৩ জনের নামে ডোমার থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। ঘটনার পর থেকে আসামীরা পলাতক ছিলেন। 
ডোমার থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. মাহমুদ করিম বলেন, র‌্যাব -১৩ নীলফামারী ক্যাম্পের সদস্যরা ওই মামলার ৪ নম্বর আসামী মো. বিটুল ইসলামকে পঞ্চগড় জেলার দেবীগঞ্জ উপজেলা থেকে শুক্রবার রাতে গ্রেপ্তার করে। রাত ১২টার দিকে তারা ওই আসামীকে ডোমার থানায় সোপর্দ্দ করে। শনিবার দুপুরে আসামী বিটুল ইসলামকে আদালতের মাধ্যমে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়েছে। পুলিশের পক্ষে অন্যান্য আসামীদের গ্রেপ্তারে অভিযান অব্যহত আছে।’  নিহত রফিকুল ইসলাম এবং আসামী বিটুল ইসলাম ওই গ্রামের মুত লুৎফর রহমানের ছেলে।
ঘটনার বিবরনে জানা যায়, ওই গ্রামের মৃত লুৎফর রহমানের ৬ ছেলের মধ্যে ৪৩ শতাংশের একটি পুকুরের মালিকানা নিয়ে বেশ কিছুদিন ধরে দ্বন্দ্ব চলে আসছিল। ওই ৬ ছেলের মধ্যে রফিকুল ইসলাম (৫৫) ও মফিজার রহমান (৬০) একটি পক্ষ, এবং অপর চার ভাই বিটুল ইসলাম, রমজান আলী, আবু বক্কর সিদ্দিক ও মো. রেজাউল ইসলাম অপর একটি পক্ষ। ঘটনার দিন বিকেলে ওই পুকুর পারে যান রফিকুল ইসলাম। এসময় প্রতিপক্ষরা তাদের পরিবারের সদস্যদের নিয়ে রফিকুল ইসলামের ওপর হামলা চালায়। এসময় রফিকুল ইসলাম ঘটনাস্থলে নিহত হন। আহত হন মফিজার রহমান ও তার ছেলে জিকরুল ইসলাম (২২)। ঘটনার পর থেকে প্রতিপক্ষের লোকজন গাঁ ঢাকা  দেন। 
ডোমার থানা পুলিশ নিহত রফিকুল ইসলামের লাশ উদ্ধার করে পরদিন নীলফামারী জেনারেল হাসপাতাল মর্গে ময়না তদন্ত করায়। এ ঘটনায় নিহতের ছেলে ফরিদুল ইসলাম বাদি হয়ে তার চাচাতো ভাই মনির ইসলামকে (২২) প্রধান আসামী করে চাচা বিটুল ইসলামসহ ১৩ জনের নাম উল্লেখ করে ডোমার থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। 

মন্তব্য করুন


 

Link copied